1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৩৪ পূর্বাহ্ন

দুর্নীতি ও ধর্ষণের অ‌ভিযো‌গে অভিযুক্ত জামানুরকে স্বপ‌দে ফেরা‌তে তোড়জোড়

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

দুর্নীতি ও ধর্ষণের অ‌ভিযো‌গে অভিযুক্ত জামানুরকে স্বপ‌দে ফেরা‌তে তোড়জোড়।

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সরকা‌রি প্রক‌ল্পের কা‌জে দুর্নীতিতে সাময়িক বরখাস্ত ও ধর্ষণের অ‌ভি‌যো‌গে অ‌ভিযুক্ত জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. জামানুর রহমানকে স্বপদে ফিরিয়ে আনা ও পদোন্নতি দেয়ার জন্য শুরু হয়েছে তোড়জোড়। ফ‌লে এ নিয়ে ক্ষুব্ধ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের অন্যান্য অনেক প্রকৌশলীও।

তাদের ভাষ্য ম‌তে, কিছু অসাধু ব্য‌ক্তির সহযোগীতায়  অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে জামানুর নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করে স্বপদে ফেরার চেষ্টা করছেন।

গত বছরের ১৭ অক্টোবর স্থা‌নীয় সরকার প‌ল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের পা‌নি সরবরাহ-১ শাখা থে‌কে সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উ‌দ্দিন চৌধু‌রী স্বাক্ষ‌রিত এক প্রজ্ঞাপন জা‌রি ক‌রে (স্মারক নং ৬৪৪) জামানু‌রের দুর্নীতি প্রমা‌ণিত হয় ব‌লে জানা‌নো হয়। সেই স‌ঙ্গে তা‌কে বরখাস্তের বিষ‌য়ে জানা‌নো হয়।

প্রজ্ঞাপ‌নে বলা হয়, মো. জামানুর রহমান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, খুলনা সার্কেল, খুলনা (সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী, পাবনা জেলা, পাবনা) এর বিরুদ্ধে পাবনা জেলার সুজানগর পৌরসভায় আর্সেনিকমুক্ত সুপেয় পানি সরবরাহ ও পানি নিষ্কাশনের জন্য (Piped Water Environmental Sanitation) প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত না করে সমস্ত টাকা উত্তোলনসহ ব্যাপক অনিয়ম ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগসমূহ স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে।

আরও বলা হয়, উল্লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ৩(খ) অসদাচরণের অভিযোগে বিভাগীয় মামলা রুজু করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

সরকারি কর্মচারি (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা, ২০১৮ এর বিধি ১২(১) অনুসারে জনাব মো. জামানুর রহমান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, খুলনা সার্কেল, খুলনা (সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী, পাবনা জেলা, পাবনা)কে চাকরি হতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো।

এছাড়া স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবরে গত ৮ সেপ্টেম্বর দাখিলকৃত তিন পৃষ্ঠার অভিযোগে ২০ নম্বর দফায় জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, খুলনা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী জামানুর রহমানের নারী লিপ্সুতার কথাও উল্লেখ করা হয়।

এছাড়াও প্রকৌশলী জামানুর রহমানের বিরুদ্ধে আছে এক তরুণীকে আটকে রেখে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণের অভিযোগ। জানা‌গে‌ছে, অ‌ভিযুক্ত জামানুর ছি‌লেন ধ‌র্ষিতা তরুণীর বাবার বস। এই সুবাদে জামানুর তা‌দের বাসায় আসা যাওয়া করতেন।

২০১৫ সালে ওই তরুণী মহিলা পলিটেকনিক হতে ডিপ্লোমা পাস করার পর একদিন হঠাৎ ফোন দিয়ে ডুয়েটে ভর্তির কথা বলে রেজাল্ট কার্ড নিয়ে মোহাম্মদপুরের রাজধানী হোটে‌লের রুমে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক নির্যাতন করে।

পরে চাকুরী পাইয়ে দেয়ার কথা বলে তার বাবা-মাকে ম্যানেজ করে ২০১৫ সাল হতে ২০২২ সাল পর্যন্ত ধর্ষণ ও মানসিক নির্যাতন করে ব‌লেও জামানু‌রের বিরু‌দ্ধে অ‌ভি‌যোগ তো‌লে ভুক্তভোগী প‌রিবার। এসব বিষয়ে মুখ না খুল‌তে প্রাণনা‌শের হুম‌কিসহ নানান ভা‌বে ভয়‌ভী‌তি দেখান জামানুর ব‌লেও অভিযোগ রয়েছে।

ফ‌লে বাধ্য হ‌য়ে গত ৩ মার্চ রাজশাহী প্রেসক্লাব সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট চত্বরে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন ক‌রে ভুক্তভোগী প‌রিবারসহ এলাকাবা‌সী। এসময় জামানু‌রের বিচার দাবি করেন ওই ভুক্তভোগী তরুণী ও তার পরিবার।

সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগী ওই তরুণী জানান, নিজের যৌন আকাঙ্ক্ষা মেটাতে চাকরির প্রলোভনে তরুণীদের নিজের জালে ফাঁসাতেন প্রকৌশলী জামানুর। কেউ রাজি না হলে দিতেন নানা অপবাদ।

সম্প্রতি বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া শেষ বর্ষের মেধাবী এক তরুণীকে চাকুরীর প্রলোভনে ধর্ষণ করার পর তরুণীর মুখ খোলার চেষ্টা করলে পাগল অপবাদে ভর্তি করিয়েছেন মানসিক হাসপাতালে। এমন অভিযোগ উঠেছে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের এই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে। পাবনা মানসিক হাসপাতাল থেকে মুক্তি মিললেও ওই তরুণীর দিন কাটছে অজানা আতঙ্কে।

গোড়ার কথা:

প্রকৌশলী জামানুর রহমান তরুণীর বাবার বস ছিলেন। সেই সুবাদে জামানুর তাদের বাসায় আসা যাওয়া করতেন এবং তরুণীর দিকে কু-দৃষ্টিতে তাকাতেন।

২০১৫ সালে মহিলা পলিটেকনিক হতে ডিপ্লোমা পাস করার পর ডুয়েটে ভর্তি করার কথা বলে তাকে গাজীপুরে নিয়ে আসেন জামানুর। প‌রে একদিন হঠাৎ ফোন দিয়ে ভুক্তভোগীকে ডুয়েটে ভর্তির কথা বলে রেজাল্ট কার্ড নিয়ে মোহাম্মদপুরের রাজধানী হোটে‌লের রুমে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক নির্যাতন ক‌রেন। চাকরি দেয়ার কথা বলে বাবা-মাকে ভয় দে‌খি‌য়ে ম্যানেজ করে ২০১৫ সাল হতে ২০২২ সাল পর্যন্ত ধর্ষণ ও মানসিক নির্যাতন করেন তিনি।

মিথ্যা প্রলোভন বুঝতে পেরে ওই তরুণী মুখ খুলতে চাইলে, তাকে ইনজেকশন দিয়ে মোবাইল, আইডি কার্ড, সার্টিফিকেট, পরীক্ষার এডমিটসহ সব ডকুমেন্ট ছিনিয়ে নেয় জামানুর রহমান তার লোকদের দিয়ে। প‌রে এসব বিষ‌য়ে জানাজা‌নির ভ‌য়ে ওই তরুণীকে শিকল দিয়ে অন্য জায়গায় বন্দি করে রাখে কয়েক মাস। তারপর তাকে পাগল বানিয়ে মানসিক হাসপাতাল, পাবনায় ভর্তি করান।

প‌রে ৩০ মে, ২০২২ তারিখে তরুণীর স্বামী অজ্ঞাত লোকের ফোনে স্ত্রীর খবর জানতে পেরে আদালতের দ্বারস্থ হয়ে পিবিআই এর সহযোগিতায় উদ্ধার করেন। তারপর তিনি ২২ দফায় জবানবন্দি দেন। তারপর থেকে তরুণীর জীবনে নেমে আসে প্রাণনাশের হুমকি, বাসায় হামলা।

এত অভিযোগ ও অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার পরে বরখাস্ত করার পরেও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. জামানুর রহমানকে নির্দোষ দেখিয়ে তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে বহাল রাখতে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের অনেক প্রকৌশলীও।

নাম প্রকাশ না করার শ‌র্তে তারা জানান, কিছু অসাধু কর্মকর্তার মাধ্যমে অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে জামানুর নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করে স্বপদে ফেরার চেষ্টা করছেন।

এ বিষ‌য়ে পা‌নি সরবরাহ অনু‌বিভাগের অ‌তি‌রিক্ত স‌চিব মুস্তাকীম বিল্লাহ ফারুকী ব‌লেন, এটা একটা সাধারণ প্রক্রিয়া। অ্যাড‌মি‌নি‌স্ট্রিভ প্রক্রিয়া। অ্যাড‌মি‌নি‌স্ট্রিভ প্রক্রিয়ায় যেভাবে প্রক্রিয়াকরণ করা হয় তদন্ত রি‌পো‌র্টে আ‌সে, তার মতামত চাওয়া হয়, তার মতাম‌তের ভি‌ত্তি‌ত অ্যাড‌মি‌নি‌স্ট্রিটিভ থে‌কে সিদ্ধান্ত নেয়া হ‌য়ে‌ছে।

তি‌নি ব‌লেন, বরখাস্ত প্রঞ্জাপন জা‌রি করা হ‌য়ে‌ছি‌লে কিন্তু বরখাস্তটা‌তো শা‌স্তি না। সাম‌য়িক বরখাস্তর পর তদন্ত হয়। তদন্ত রি‌পো‌র্টে যেমনটা আস‌বে অথবা কর্তৃপক্ষ যেমনটা ম‌নে কর‌বে সেটার উপর ভি‌ত্তি ক‌রে পরবর্তী‌তে ব্যবস্থা নে‌বে।

অ‌ভিযুক্ত জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. জামানুর রহমান বলেন, এ বিষ‌য়ে আ‌মি কিছু বল‌তে চাই না। এরপরই ফোন কে‌টে দেন। প‌রে একা‌ধিক বার যোগা‌যোগ করা হ‌লে তি‌নি প্রতিবেদ‌কের নাম্বার ব্লক ক‌রে দেন। ক্ষুদে বার্তা পা‌ঠালে তারও কোনো জবাব আসেনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost