1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচার কর্মীর উপর হামলা 

মোঃ আল আমিন খান সাগর
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচার কর্মীর উপর হামলা 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

 

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে শংকর চন্দ্র ইউনিয়নের পুরাতন শংকর চন্দ্র বড় মসজিদ এলাকায় প্রচার প্রচারণা ঘিরে প্রতিপক্ষের এলোপাতারি আঘাতে স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের এক প্রচার কর্মী গুরুতর আহত হয়ে‍ছেন।

 

মঙ্গলবার রাত আটটার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শংকর চন্দ্র ইউনিয়নের পূরাতণ শংকরচন্দ্র বড় মসজিদ  এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

 

আহত মোঃ ফজলুর রহমান একই এলাকার আজিজুল হক এর পূত্র।

 

স্থানীয় এবং প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রতিদিনের ন্যায় ফজলুর রহমান তার নিজস্ব অটোতে ঈগল প্রতীকের নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছিলেন। ঘটনার সময় তিনি পুরাতন শংকর চন্দ্র বড় জামে মসজিদের সামনে এলে কিছু উশৃঙ্খল নৌকার সমর্থক তার গাড়ির পেছনে থাকা ঈগল প্রতীকের ব্যানার ছিড়ে ফেলে।

 

ফজলুর রহমান এর প্রতিবাদ করলে শংকর চন্দ্র বালিকা বিদ্যালয় এলাকার আফতাব মন্ডলের ছেলে শিমুল এসে ফজলুর রহমানকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে এবং তার মুখমন্ডলে এলোপাতারি কিল, চড় ও ঘুষি মারতে থাকে।

এসময় আশপাশে থাকা লোকজন এসে শিমুলকে নিভৃত করতে চাইলে শিমুল তাদের অগ্রাহ্য করে উপুর্যপরি মারধর করতে থাকে। এক পর্যায়ে ফজলুর রহমান অটো নিয়ে পাশের একটি বাড়ির সামনে এসে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান।

 

পরে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে হাসপাতালে ভর্তি  করেন।

 

এ বিষয়ে আহত ফজলুর রহমানের স্ত্রী মমতাজ বেগম বলেন, আমার স্বামী অটো চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। ঈগলের প্রচার করার কারনে প্রতিহিংসা বশত: এই কান্ড ঘটিয়েছে।

 

এব্যাপারে ফজলুর রহমানের ভাই মোঃ জাহিদুল ইসলাম বলেন, শুধুমাত্র ঈগলের প্রচারণার কারনেই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এছাড়া তার বা তাদের পরিবারের সাথে আমার ভাইয়ের কোনো ঝামেলা নেই। তারা নৌকার সমর্থক। তার কথা হলো ঈগলের প্রচার করা যাবে না।

 

তিনি আরো বলেন, আমরা এবং আমাদের পরিবার এখন হুমকির মুখে আছি। প্রশাসনের কাছে আমাদের জীবনের নিরাপত্তা দাবি করছি।

 

এ ঘটনায় এলাকাবাসী অপরাধীদের সঠিক ও সুষ্ঠু বিচার দাবী করে বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য এসকল সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনা উচিত।

 

এব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেন, তার আঘাত মোটামুটি গুরুতর। আঘাত গুরুতর হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

 

চুয়াডাঙ্গা থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই রবিন বলেন, শংকরচন্দ্র এলাকায় ঈগল প্রতীকের একজন নির্বাচনী প্রচার কর্মীর উপর হামলার এঘটনা ঘটেছে। এব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলমান। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশের তৎপরতা অব্যহত রয়েছে।

 

যেকোনো সন্ত্রাসী অপ তৎপরতা রোধে চুয়াডাঙ্গা থানা পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost