1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৭:৫৭ অপরাহ্ন

মৌলভীবাজারের দি নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে আবারও ভুল রিপোর্টের অভিযোগ

মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

ক্রাইম রিপোর্টার : মৌলভীবাজার সদর উপজেলার কাজিরগাও এলাকার রিয়াজ মাহমুদ নামের এক রোগী ডায়রিয়া জনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন ২৮ জানুয়ারি সকালে।

কর্তব্যরত ডাক্তার কয়েকটি পরীক্ষা করার জন্য দেন। তখন হাসপাতালে দি নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দালাল এসে রোগী রিয়াজ মাহমুদের কাছে গিয়ে বলে এই সব পরীক্ষা গুলো হাসপাতালে হবে না।

অন্য ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা করালে টাকা বেশী লাগবে। আমাদের দি নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে করালে ভাল ছাড় দেয়া হবে বলে সিরাম ইলেক্ট্রলাইট পরীক্ষার জন্য রক্ত নিয়ে যায়।

দি নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে সিরাম ইলেক্ট্রলাইটের রিপোর্ট নিয়ে আসলে রিপোর্টে পটাশিয়াম 17.00mmol/L দেখানো হয়। উক্ত রিপোর্ট দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: বিদুর কান্তি সাহা অবাক হয়ে বলেন, পটাশিয়াম এত থাকলে তো রোগী বেঁচে থাকার কথা না।

সাথে সাথে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাঃ বিদুর কান্তি সাহা রোগীকে বলেন রিপোর্টে সমস্যা রয়েছে। যেহেতু এই পরীক্ষা আমাদের হাসপাতালে নেই আপনি সিরাম ইলেক্ট্রোলাইট অন্য কোন ডায়াগনস্টিক সেন্টারে করান।

ডাক্তারের পরামর্শে রিয়াজ মাহমুদ দি পালস ডায়াগনস্টিক সেন্টারে উক্ত রিপোর্ট করালে সেখানে পটাশিয়ামের পরিমাণ 4.12mmol/L দেখা যায়।

উক্ত বিষয়ে ভুক্তভোগী রোগী রিয়াজ মাহমুদের অভিযোগের বিষয় নিয়ে ডা: বিদুর কান্তি সাহার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি এত পরিমাণ পটাশিয়াম মাত্রা দেখে রোগীকে পূনরায় পরীক্ষা করার জন্য বলি এবং আমি ঐ রিপোর্টের উপর চিকিৎসা না দিয়ে রোগীর অন্য পরীক্ষা ও শারীরিক অবস্থা দেখে চিকিৎসা প্রদান করি।
পরে দ্বিতীয় রিপোর্ট দেখে আমার রোগী রিয়াজ মাহমুদের অবস্থা ভাল আছে, ভয়ের কোন কারন নেই বলে আশ্বস্ত হই।

পরবর্তীতে দি নিউ লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টারের পরিচালক জলিল আহমদ এর সাথে মুঠোফোনে উক্ত রিপোর্টের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সিরাম ইলেক্ট্রোলাইট আমি আজকে ৬ টি টেস্ট করেছি, ৫টি ভাল আসছে, শুধু রিয়াজ মাহমুদের রিপোর্টে মেশিনের সমস্যার কারণে ভুল আসছে। আমি রোগীকে বলেছি, টাকা ফেরত দিয়ে দিব অন্য জায়গায় রিপোর্ট করিয়ে নেয়ার জন্য।

৫টি রিপোর্ট ভালো আসলো আর একটি খারাপ আসলো, তাহলে আপনি মেশিনের সমস্যা হয়েছে কিভাবে বুঝে গেলেন? প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, মেশিনের সমস্যার কারণে এরকম হয়।
আমি টেকনিশিয়ানকে আসার জন্য বলেছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost