1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৪৮ পূর্বাহ্ন

বাঁশখালীতে চট্টলগৌরব ডিপুটি শাহ’র স্মরন সভা ও কবি সম্মেলন অনুষ্ঠিত

এনামুল হক রাশেদী
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টলগৌরব খ্যাত বাঁশখালীর অধিবাসি ডিপুটি শাহ মোহাম্মদ বদিউল আলম স্মরনে বাংলাদেশ ও ভারতের বুদ্ধিজীবি ও সুশীল সমাজের অংশ গ্রহনে এক স্মরন সভা ও সাহিত্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুই বাংলার বিদগ্ধ আলোচকরা ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামে ডিপুটি শাহ বদিউল আলমের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা রয়েছে উল্লেখ করে বাংলাদেশে তাঁর মুল্যায়ন প্রত্যাশা করেন।

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ইং মঙ্গলবার সকাল ১০ টা থেকে দিনব্যাপী চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার কালিপুর ইউনিয়নের ইজ্বতনগর গ্রামের ঐতিহ্যবাহী সাহেব বাড়িতে অনুষ্ঠিত স্মরন সভা ও সাহিত্য সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বাঁশখালী সাহিত্য-সংস্কৃতি পরিষদের উপদেস্টা মোঃ শাহ আলম মৌলুদ। কবি সম্মেলনের প্রধান উদ্যোক্তা ও চট্টলানামার সম্পাদক মোহাম্মদ নাজমুল হক শামীমের ঐকান্তিক প্রচেস্টায় ইতিহাস ও সাহিত্য বিষয়ক লিটন ম্যাগাজিন চট্টলানামা ও বাঁশখালী সাহিত্য-সংস্কৃতি পরিষদ-এর আয়োজনে দিনব্যাপী কবি সম্মেলন উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট নারী সাংবাদিক কবি সৈয়দা রোকসানা জামান সানু। প্রধান অথিতি ছিলেন, বিশিষ্ঠ্য শিক্ষানুরাগী ও প্রাবন্ধিক লায়ন দুলাল কান্তি বড়ুয়া। প্রধান আলোচক ছিলেন, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ থেকে আগত বিশিষ্ট কবি ও ইতিহাসবিদ মোহাম্মদ আজিজুল হক। বিশেষ অথিতি ছিলেন, ভারতের শিউরি বিদ্যাসাগর কলেজের আরবি সাহিত্যের অধ্যাপক সৈয়দ বাসির আল-হিলাল, ভারতের শিক্ষারত্ন পুরস্কারপ্রাপ্ত কবি নুরনবী জমাদার, পশ্চিমবঙ্গের আব্বাজানখ্যাত সমাজকর্মী রাধেশ্যাম ঘোষ, ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি সোহেল মো. ফখরুদ-দীন, পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ট কবি শ্রী তারকনাথ দত্ত, মুসলমান ইতিহাস সমিতির মহাসচিব মাস্টার মুহাম্মদ আবুল হোসাইন।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, ইতিহাস-ঐতিহ্য, সাহিত্য-সংস্কৃতির বরপুত্র চট্টলগৌরব ডিপুটি শাহ মোহাম্মদ বদিউল আলমের অবদান ও ত্যাগ ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামে স্বর্ণাক্ষরে লেখা রয়েছে। ডিপুটি শাহ মোহাম্মদ বদিউল আলম ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের জন্য কলকাতায় থেকে মহাত্মা গান্ধীর সাথে রাজপথে তেজস্বী বক্তব্য ও পত্রিকার প্রকাশের অপরাধে বারেবারে ব্রিটিশ দ্বারা নির্যাতিত ও কারাবরণ করেছেন। দি মোহামেডান অবজারভার পত্রিকা প্রকাশের মাধ্যমে তিনি বাঙালি জাগরণ ও ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামে নিজের জীবনকে জাতির জন্য উৎসর্গ করেছেন। তাঁর মতো ত্যাগী ও গুণীব্যক্তিকে মৃত্যুর ৯৪ বছর পর তাঁর পবিত্র সমাধির সম্মুখে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশ-ভারতবর্ষের কবি-সাহিত্যিকরা তাঁর জীবনকর্ম আলোচনা সত্যই স্মরণীয় ঘটনা। ইতিহাসের এই কালজয়ী মহাপুরুষের সাহিত্যকর্ম, মরমিচর্চা, অনুবাদ ও তাঁর আদর্শ নবপ্রজন্মের কাছে তুলে ধরার প্রয়োজন রয়েছে।

সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন, মুহাম্মদ মুরিদুল আলম নজর, মুহাম্মদ মনসুর আলম, মুহাম্মদ তরিকুল আলম, মুহাম্মদ শহিদুল আলম, ইনতিসার সাদেকীন অভি, তাসিফুল আলম, প্রবীণ শিক্ষাবিদ অনাথবন্ধু রুদ্র, সঙ্গীতশিল্পী সুকুমার জলদাস, সঙ্গীতশিল্পী শামসুল হায়দার তুষার, তানজিন আহম্মদ, মোহাম্মদ সাব্বির, দেলোয়ার হোসেন মানিক, সাফাত বিন সানাউল্লাহ প্রমুখ।

 

কবি সম্মেলনে আগত দেশ-বিদেশের কবিদের বাঙালির ঐতিহ্য ঢোল-বাদ্য বাজিয়ে বরণ করা হয়। সম্মেলনের শুরুতে দি মোহামেডান অবজারভার পত্রিকার সম্পাদক ডিপুটি শাহ মোহাম্মদ বদিউল আলমের সমাধিতে পুষ্পার্ঘ্য দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

 

এম.চৌ:/এসময়

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost