1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৭:৪১ অপরাহ্ন

ঈদের সময় সরকারি আইন দেশে নাই, একশ টাকা বেশি নেয়। জানালেন, শরীয়তপুর বাস মালিক সমিতির সভাপতি ফারুক তালুকদার

মোঃ মোখলেছ মোল্লা
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

ঈদের সময় সরকারি আইন দেশে নাই, একশ টাকা বেশি নেয়। জানালেন, শরীয়তপুর বাস মালিক সমিতির সভাপতি ফারুক তালুকদার

স্টাফ রিপোর্টারঃ

২০২২ সালের ২৫ ই জুন যাতায়াতের জন্য চালু হয় পদ্মাসেতু।

পদ্মাসেতু উদ্ভোদনের পর থেকে শরীয়তপুর থেকে সরাসরি ঢাকা পর্যন্ত চালু হয় বাস চলাচল।

একাধিক পরিবহন মাঠে নামায় শতশত কোটি মূল্যের বাস।কোন ধরণের লোকাল সার্ভিস না থাকায় ঢাকা টু শরীয়তপুর রুটের বাসের মালকেরা লাভেই আছে এমনটা ধারণা করা হয়।

তবে প্রতিবছরই দেশের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট গুলোরমতো ঢাকা টু শরীয়তপুর রুটে।

নানা সময়ে নানা রকম অজুহাতে বাড়ানো হয় এই ভাড়া।

কখনও বলা হয় ঈদ বকশিশ আবার কখনওবা শরীয়তপুর থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে যাত্রী কম এমন অজুহাত নেয়া হচ্ছে অতিরিক্ত অর্থ।

এদিকে পরিবারের সঙ্গে ঈদ কাটাতে নির্ধারিত মূল্যের অধিক অর্থ দিয়েই টিকেট কাটতে বাধ্য হচ্ছে ঘরমুখো মানুষ।

সরজমিনে দেখা গিয়েছে রমজানের শুরু লগ্ন থেকেই ঢাকা কেন্দ্রীক বাস গুলোতে সুযোগ বুঝে হাতিয়ে নিচ্ছে অতিরিক্ত অর্থ।

দীর্ঘ ১ মাসের পর্যবেক্ষণে আমাদের হাতে আসে একাধিক ভাড়া সংক্রান্ত অভিযোগ।

এসময়ে আমরা দেখেছি দিনের বেলায় কিছু কিছু বাসে ভাড়া স্বাভাবিক থাকলেও দুপুরের পর থেকে শুরু হয় পাল্লাপাল্লি।

রাত নামলে তা ছাড়িয়ে যায় কয়েকগুণ।

গত সোমবারের (৮ই এপ্রিল) জরিপ অনুযায়ী শরীয়তপুর সুপার সার্ভিস যাত্রাবাড়ী থেকে জাজিরা পর্যন্ত ভাড়া নিয়েছে ৩০০ টাকা এবং শরীয়তপুর পর্যন্ত ৩৫০ টাকা।

যেখানে অতিরিক্ত নিয়েছে ৫০ টাকা। এছাড়া শরীয়তপুর পরিবহন, পদ্মা ট্রাভেলস, গ্লোরি পরিবহন ও ফ্রেম পরিবহনের ভাড়া ছিলো প্রায় কাছাকাছি, যা ৪০০-৫০০ পর্যন্ত।

তবে তথ্য বলছে জাজিরা /কাজিরহাট পর্যন্ত বিআরটিএ র নির্ধারিত ভাড়া ২৫০ টাকা এবং শরীয়তপুর সদর পর্যন্ত ২৯৮ টাকা।

সোমবার (০৯ এপ্রিল) ঢাকা থেকে শরীয়তপুর পরিবহনে উঠেছিলো এমদাদুর রহমান (৩৪), তিনি  জানান বাসে উঠেছে যাত্রাবাড়ী থেকে।

তাকে টিকেট দেয়া হয়েছে ২৯৮ টাকার তবে ভাড়া নেয়া হয়েছে ৫০০ টাকা।

একইদিন যাত্রাবাড়ী থেকে জাজিরার উদ্দেশ্যে বাসে ওঠেন আনোয়ার (২৬),তিনি জানান নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হয়েছে তার থেকে।

শরীয়তপুর পরিবহনে যাত্রাবাড়ী থেকে জাজিরা পর্যন্ত তাকে ভাড়া দিতে হয়েছে ৪০০ টাকা।

এছাড়া মঙ্গলবার (০৯ এপ্রিল) সকাল থেকে ঢাকা টু শরীয়তপুর মুখী ভাড়া ছিলো প্রায় সর্বনিম্ন ৫০০ টাকা এবং সর্বচ্চ ৬০০ টাকা পর্যন্ত।

আমাদের কথা হয় একজন গার্মেন্টস শ্রমিক আসলাম শিকদারের (৩৫) সাথে, লাউখোলা নিবাসী আসলাম জানায় সারা বছরে এই একবার বাড়ি আসি ছুটিতে।

এই ঈদে পরিবারের সদস্যদের জন্য কেনা-কাটা যাতায়াত খরচ সব মিলিয়ে একটা চাপ যায় আমাগো মত নিম্ন আয়ের মানুষের।

এর মধ্যে বাসের ২৫০ টাকার ভাড়া ৬০০ নেয় এইডা জুলুম হইয়া যায়।

ঈদের মতন এমন পবিত্র উৎসব পুঁজি করে যেসব অসাধু বাস মালিকেরা এই জুলুম করে তাদের বিচার আল্লাহ করব।

বিগত দিনগুলোতেও এই পরিবহনগুলোর নামে রয়েছে ভাড়া সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগ।

গত ৬ ই মার্চ (বুধবার) শরীয়তপুর থেকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা যান ইয়াসমিন বেগম (৩৯)।

তিনি জানান, মগবাজার ডাক্তার দেখিয়ে রাত ৯.৪০ এ আমি ও আমার ছেলে যাত্রাবাড়ী গিয়ে বাসে উঠি।

সেখানে সিরিয়ালে থাকা বাসটিতে সিট নেই বলে পরের বাসে উঠার অনুরোধ করে বাসের সুপারভাইজার।

পরের বাস আসলে আমি সহ ওই স্টান্ডে দাড়িয়ে থাকা প্রায় ৫০ জন লোক বাসে উঠে বসে।

কিছুসময় পর বাসে সুপারভাইজার উঠে জানায় এটা টাইমের পরের বাস, তাই ভাড়া দিতে হবে ৩০০ করে।

তবে সে আমাকে টিকেট দেয় ২৫০ টাকার।

এনিয়ে বাসে কেউ কেউ প্রতিবাদ করে উঠলে তাদের বাস থেকে জোর করে নামিয়ে দেয়ার চেষ্টাও চালানো হয়।

এবিষয়ে শরীয়তপুর বাস মালিক সমিতির সভাপতি ফারুক তালুকদারের জানায়, সরকারি হিসাব বাংলাদেশে নাই। ঈদের সময় ১০০ টাকা বেশি নেয়।

বাসে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার বিষয়ে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ নিজাম উদ্দীন আহাম্মেদ বলেন, সরকারি সিদ্ধান্তের বাইরে কোন কিছু করার সুযোগ নেই।

যদি সরকার ভাড়া বারায় তো বারবে আর কমাইলে কমবে
এর বাইরে তারা তাদের মোন মতো কাজ করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মো.মি/এসময়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost