1. news@esomoy.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
  2. admin@esomoy.com : admin :
শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ০৯:০৪ অপরাহ্ন

প্রচন্ড গরমে বন্ধুদের নিয়ে মধুমতিতে মাশরাফী , এ যেন সেই কৈশোরের কৌশিক

মৌসুমী নিলু 
ইপেপার / প্রিন্ট ইপেপার / প্রিন্ট

নড়াইল জেলা প্রতিনিধি: নড়াইলে বইছে তীব্র তাপদাহের সাথে গরম বাতাস। ৪১ থেকে ৪৩ ডিগ্রি তাপমাত্রায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জনজীবন। এরই মাঝে পাচদিন ধরে নড়াইলে অবস্থান করছেন তারকা ক্রিকেটার জাতীয় সংসদ হুইপ ও নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। প্রচণ্ড গরম উপেক্ষা করে একের পর এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েও ক্লান্তির লেস মাত্র নাই তার চেহারায়। এত আনুষ্ঠানিকতার মাঝেও বন্ধুদের সাথে আড্ডায় জমে উঠা নড়াইলের কৌশিকের নেশা।

মঙ্গলবার ( ৩০ এপ্রিল) পরপর দুটি মতবিনিময় সভা শেষ করে তপ্ত দুপুরের প্রচণ্ড খরতাপের মাঝেই হুট করে সিদ্ধান্ত লোহাগড়া যাবেন মাশরাফী। নিজের গোছগাছ সেরে গাড়িতে চেপে বন্ধুদের ও উঠতে বললেন। কিছু না বললেই বা কি আসে যায় তার বন্ধুরা ও যে তাকে ঢের চেনে।

গাড়ি ছুটে চলল, লোহাগড়া থেকে ডানে গ্রামের পথ বেয়ে ২৪ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে মাশরাফীর গাড়ি বহর থামল উপজেলার ঘাঘা গ্রামের মধুমতি নদীর পাড়ে। ক্যাপ্টেন বরাবরের মতো সবার আগে নদীতে নামলেন, পেছনে বন্ধুর বহর। একে একে ঝাঁপিয়ে পড়লেন মধুমতি নদীর পানিতে। বন্ধু ও পার্সোনাল কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম প্রটোকলের বেড়াজালে পাড়েই দাঁড়িয়ে রইলেন। কি আর করা ডাক এলো, সবাই নদীতে নামবেন। অগত্যা ব্যক্তিগত কর্মকর্তা, দেহরক্ষী সবারই নামতে হলো নদীর পানিতে।

পানিতে নেমেই ফুটবল নিয়ে বন্ধুদের উপর হামলে পড়া, সাঁতরে মাঝ নদীতে যাওয়া, বন্ধুদের ঘাড়ে উঠিয়ে চেলে ফেলা এ যেন কৈশরের কৌশিক সব ভুলে মেতেছেন ছেলেবেলার দুরন্তপনায়। ঘণ্টাব্যাপী পানির মধ্যে থেকে ও কোথাও একটা কমতি মনে হলো কৌশিকের। বড় নদী সাঁতরে মাঝ নদীতে গিয়ে বন্ধুদের পার করা মাছ ধরা নৌকার গলুই ধরে ঝুলে বাকিটা নদী পার হয়ে উপরে বসেই একটু পানি পান করলেন। কিন্তু বসে থাকার জো তো আর নেই! বন্ধুরা দলবেঁধে হামলা বলেই কাঁদা ছুড়তে লাগলেন মাশরাফীর দিকে। কিছুটা সামলেই পাল্টা নিজে কাদা হাতে বন্ধুদের উপর পাল্টা আক্রমণ চালান ম্যাশ। কাঁদা ছোটার প্রতিদানে কাঁদা মাখালেন বন্ধুদের আর সাথে বোনাস হিসাবে কয়েকটা চুবানি ও খেলেন তারা।

বন্ধুদের সবাইকে নিজের দেওয়া নাম ধরে ডেকে অন্যরকম তৃপ্তি অনুভব করেন ম্যাশ। এ তালিকায় স্নেহধন্য ছোট ভাই জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক স্বপ্নীল শিকদার নীল ও বাদ পড়লেন না। নিজের দেওয়া নাম ধরে ডেকে অট্ট হাসিতে ফেটে পড়েন কৌশিক।

এভাবেই ৩ ঘণ্টাব্যাপী চলে ম্যাশের জলকেলি। নদী পাড়ে ইতোমধ্যেই হাজারো দর্শক জমায়েত হয়েছেন মাশরাফীকে দেখার জন্য। লুঙ্গি পড়ে একটি টি শার্ট গায়ে চেপেই আবার ছুটে চলা পরবর্তী সিডিউলের দিকে। উৎসুক জনতা মাশরাফীকে বিগত ৬ বছর ধরে কাছ থেকে দেখছেন। আজ দেখলেন ভিন্ন রূপে, একটাই মন্তব্য মাশরাফী এতটা সাধারণ।

হু/ক

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2019
Design By Raytahost